1. banglatheme@gmail.com : admin :
বৃহস্পতিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২০, ১২:০১ পূর্বাহ্ন
বিজ্ঞপ্তিঃ
স্বাগতম!!!!!!!স্বাগতম!!!!!!!স্বাগতম!!!!!!!স্বাগতম!!!!!!!স্বাগতম!!!!!!!স্বাগতম!!!!!!!স্বাগতম!!!!!!!স্বাগতম!!!!!!!স্বাগতম!!!!!!!স্বাগতম!!!!!!!স্বাগতম!!!!!!!স্বাগতম!!!!!!!স্বাগতম!!!!!!!স্বাগতম!!!!!!!স্বাগতম!!!!!!!স্বাগতম!!!!!!!স্বাগতম!!!!!!!স্বাগতম!!!!!!!
আর্কাইভ | পুরাতন সংবাদ পড়ুন

add

সর্দি-ঠান্ডা সারাতে খাবেন ভিটামিন ‘সি’

সাধারণ সর্দি-কাশি সারাতে ঘরোয়া কিছু উপাদানই যথেষ্ট। টাটকা ও প্রাকৃতিক টক জাতীয় খাবার খাদ্যতালিকায় যুক্ত করুন। এক সপ্তাহে ঠান্ডা জাতীয় ফ্লু দূর হবে। ভিটামিন সি শরীরকে আর্দ্র রাখতেও সহায়তা করে। লেবু, কমলা, লাইম, আঙ্গুরের মতো ফলে ভিটামিন সি পাওয়া যায়। এমনকি টমেটোতেও উচ্চমাত্রায় ভিটামিন ‘সি’ রয়েছে। খাদ্যতালিকায় যেভাবে সহজেই ভিটামিন সি যুক্ত করবেন তার টিপস বিস্তারিত পড়ুন..

কাঁচা আমের যত স্বাস্থ্য উপকারিতা

বাজারে প্রচুর কাঁচা আম পাওয়া যাচ্ছে। কাঁচা আমের জুস, আচার, তরকারিসহ নানাভাবে খা্ওয়া হয়ে থাকে। শুধু স্বাদে অনন্য নয়, কাঁচা আমে রয়েছে অনেক স্বাস্থ্য উপিকারিতা। ১. ওজন কমাতে বা শরীরের বাড়তি ক্যালরি ঝরাতে সহায়ক কাঁচা আম। পাকা মিষ্টি আমের চেয়ে কাঁচা আমে চিনি কম থাকে বলে এটি ক্যালরি খরচে সহায়তা করে। ২. খাদ্য হজমে সহায়তা বিস্তারিত পড়ুন..

ঘরে তৈরি করুন জিলাপি

হোটেল বন্ধ। অস্থায়ী ‘ব্যবসায়ী’ও দোকান খুলতে পারছেন না। তাই বলে কি স্বাদের জিলাপি খাবেন না! সেটি হতেই পারে না। খুব সহজে বাড়িতেই এটি বানাতে পারেন। উপকরণ: ১ কাপ ময়দা, ২ কাপ চিনি, প্রয়োজন মতো পানি, ১/৩ চা চামচ লবণ, ৩ টেবিল চামচ টক দই, আধা চা চামচ বেকিং পাউডার, ভাজার জন্য তেল। সিরার উপকরণ: ২ বিস্তারিত পড়ুন..

বাড়িতেই বানান রসগোল্লা

দোকান-রেস্তোঁরা বন্ধ। ইচ্ছে করলেও পছন্দের অনেক খাবারই খেতে পারছেন। এ সময় অনেকেরই হয়তো লোভনীয় রসগোল্লা খেতে ইচ্ছে করছে। অপেক্ষা না করে ৩০ মিনিটেই বানিয়ে ফেলতে পারেন। দেখে নিন রেসিপি- উপকরণ: ১ কাপ পাউডার দুধ, সাড়ে ৩ কাপ পানি, ১/২ চা চামচ চিনি, এক চিমটি এলাচি গুঁড়া। চিনির সিরার জন্য- ২ কাপ চিনি, ৬ কাপ পানি। রান্না বিস্তারিত পড়ুন..

রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে হলুদ-চা

করোনাকালে শরীরে রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে হবে। পুষ্টিকর খাবার গ্রহণে পাশাপাশি কিছু ঘরোয়া মসলা খেতে পারেন। শরীর চাঙ্গা রাখতে প্রতিদিন চা খা্ওয়া হয়। এখন থেকে রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে বিভিন্ন মসলায় তৈরি হলুদ-চা বেছে নিতে পারেন। উপকরণ: হলুদ গুঁড়া ৩ টেবিল চামচ, আদা গুঁড়া ৩ টেবিল চামচ, দারচিনি গুঁড়া ২ টেবিল চামচ, লবঙ্গ ২ টেবিল চামচ, গোল মরিচ বিস্তারিত পড়ুন..

আবার জীবন শুরু হোক জীবনের নিয়মে

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব হওয়ার পর সরকার ২৬ মার্চ থেকে সারা দেশে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করে। আর সেদিন থেকেই হোম কোয়ারেন্টিনে আমি। বাংলাদেশে করোনাভাইরাস প্রথম শনাক্ত হয় ৮ মার্চ। তারপরও অফিস করেছি ২৫ মার্চ পর্যন্ত। এর মধ্যে অবশ্য একদিনের জন্য অফিসের কাজে গিয়েছিলাম যশোর আর সিলেট। তবে শোবিজে কাজ করেছি ১৭ মার্চ পর্যন্ত। সেদিন শেষ কাজ বিস্তারিত পড়ুন..

কৃষি থেকে কৃষককে আলাদা ভাবা যাবে না

করোনাভাইরাসের দৌরাত্ম্য কোথায় গিয়ে থামবে, তা এখনও নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না। এর প্রাণঘাতী চরিত্র অনুমান করা গেলেও পরিণতির শেষটা নির্ধারণ করা যাচ্ছে না। এটা শুধু বাংলাদেশের বিষয় নয়, উন্নত-অনুন্নত সারা বিশ্বেই এ এক স্মরণকালের ভয়াবহ বাস্তবতা। আক্রান্ত ২১২টি অঞ্চল ও দেশের সবাই যার যার অবস্থান ও সক্ষমতা অনুযায়ী এই মহামারী মোকাবেলার চেষ্টা করে যাচ্ছে। বিস্তারিত পড়ুন..

করোনাকালের ভাবনা

পহেলা মে ছিল সারা বিশ্বের শ্রমিকদের একটি বিশেষ দিন- মে দিবস। গত শতকে সাম্যবাদে বিশ্বাসীরা স্লোগান দিতেন ‘দুনিয়ার মজদুর এক হও’। এখনও দেন। কয়েক দশক আগে বাংলাদেশে ডায়রিয়া প্রতিরোধ ও প্রতিকারের লক্ষ্যে পানি ফুটিয়ে খাওয়ার জন্য একটি সামাজিক আন্দোলন গড়ে উঠেছিল। ওই আন্দোলনটির যথেষ্ট উপকারিতা পাওয়া যায়, যা ডায়রিয়া প্রতিরোধে নিয়ামক ভূমিকা রাখে। কিন্তু তারপরও বিস্তারিত পড়ুন..

কর্মহীনদের নগদ সহায়তা

করোনাভাইরাস পরিস্থিতির কারণে কর্মহীন জনগণকে ঈদুল ফিতরের আগেই নগদ আর্থিক সহায়তা প্রদানের কথা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সোমবার রংপুর বিভাগের আট জেলার কর্মকর্তাদের সঙ্গে ভিডিও করফারেন্সে মতবিনিময়কালে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, করোনাভাইরাসের কারণে যাদের আয়-উপার্জনের পথ নেই, তাদের কিছু নগদ আর্থিক সহায়তা আমরা ঈদের আগেই দিতে চাই, যাতে মানুষের খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত হয়। প্রধানমন্ত্রীর এ সিদ্ধান্ত সময়োচিত। বিস্তারিত পড়ুন..

‘লকডাউন’ আরও শিথিল হবে?

দেশে সাধারণ ছুটির নামে একটা অঘোষিত লকডাউন চলছে, যার মেয়াদ আরও বাড়ানো হয়েছে। এতে কোনো সন্দেহ নেই এই সময়টা খুব কঠোর লকডাউন নিশ্চিত করা গেলে করোনার পরিস্থিতি অনেকটা নিয়ন্ত্রণে রাখা যেত, কিন্তু সেটা হল না। তাতে অর্থনীতি ঠিকই ক্ষতিগ্রস্ত হল, কিন্তু করোনা নিয়ন্ত্রণের ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য কোনো প্রভাব পড়ল না। এর মধ্যেই অল্প কিছু গার্মেন্ট কারখানা বিস্তারিত পড়ুন..

add

add

add

© স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২০

কারিগরি সহায়তায়ঃ- বাংলাথিমস